মঠবাড়িয়া রাজনৈতিক নেতারা কঠোর না হলে লাশের নগরী হবে। - এম এম আর নিউজ টিভি

শিরোনাম

এম এম আর নিউজ টিভি

সত্যর সন্ধাণে আমাদের পথ চলা

Post Top Ad

আমাদের এম এম আর টেলিভিশন এর সারাদেশে বিভাগ, জেলা,উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে, আগ্রহীরা যোগাযোগের অনুরোধ রইলো:E-mail:mmrnews.info@gmail

Post Top Ad


এখানে বিজ্ঞাপন দিবেন 01772791106

মঙ্গলবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২০

মঠবাড়িয়া রাজনৈতিক নেতারা কঠোর না হলে লাশের নগরী হবে।



হারুন অর রশিদ:   দুনিয়াব্যাপী মৃত্যু আতঙ্ক করোনার ছোবল থেকে প্রতিটি মানুষ নির্দয় মরণ থেকে জীবন বাঁচাতে যে যার মতো করে মরিয়া হয়ে উঠেছে। এটির দ্বারা যখন সর্বপ্রথম চীনের মানুষ আক্রান্ত হয়। তখন আমেরিকার পরাশক্তি সহ শক্তিধর রাষ্ট্র গুলো তাদের নিরাপত্তার কথা না ভেবে হেঁয়ালির ছলে ব্যাঙ্গোক্তির সাথে অট্টহাসি হেসেছিল। তার প্রতিদান স্বরূপ আজ ইতালি, ফ্রান্স, স্পেন, জার্মানি ও আমেরিকায় লাশের মিছিল গুণছে। সৃষ্টিকর্তার কাছে অশ্রুসিক্ত নয়নে আকুতি ছাড়া তাদের প্রতিরোধের আর কোন ব্যবস্থা নেই। মঠবাড়িয়ায় বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকা থেকে নদীপথে ট্রলারযোগে সরকার ঘোষিত লকডাউন উপেক্ষা করে গোপনে যে হারে লোকজন প্রবেশ করছে তাতে খুব শীঘ্রই মহা বিপর্যয় ডেকে আনবে। ইতোমধ্যে পাতাকাটায় আবু হানিফ নামে একজন শনাক্ত হয়েছে। বিভিন্ন এলাকায় এসব অনুপ্রবেশকারীদের ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহি অফিসার, থানা অফিসার ইনচার্জ ও স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তাকে অবহিত করা হলেও সুরক্ষিত ভবনের অভাবে এদের কোথাও স্থানান্তর করা যাচ্ছে না। উপজেলা পরিষদের কোন এক সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এসব লোকদের সাময়িক থাকার জন্য সিদ্ধান্ত হয়েছিল কে, এম লতিফের ছাত্রাবাসটি। অথচ প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ তা কোনমতেই মানছেন না। সোনাখালি সহ প্রশাসনের লোকজন যেখানে জায়গা নির্ধারণে গেছেন সেখানে জনতার তোপের মুখে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছেন। এ হটকারীতা আর সংকীর্ণ মানসিকতায় সুরক্ষার অভাবে এতক্ষণে সংক্রামিতদের লাইনটি হয়তো অনেকটা লম্বা শারিতে রূপ নিয়েছে। খামখেয়ালীপনা ও রাজনৈতিক নেতাদের সদিচ্ছার অভাবে মঠবাড়িয়া আর এক কান্নার জনপদের নামও হতে পারে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তা ডাক্তার আলী আহসান বলেন, অনুপ্রবেশকারীদের জনসমাগম থেকে সুরক্ষা দিতে কোলাহলমুক্ত কয়েকটি প্রতিষ্ঠান মনোনীত করেছিলাম। কিন্তু তা থেকে ওইসব এলাকার জনপ্রতিনিধি ও জনগণের বাঁধার মুখে ব্যর্থ মনোরথে ফিরে আসি। আমাদের সে ধরনের ব্যবস্থা না থাকায় এ মুহূর্তে সংক্রামিত লোকগুলো গোটা মঠবাড়িয়াকে মহা বিপদের মুখে ঠেলে দিচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভারপ্রাপ্ত রিপন বিশ্বাস বলেন, দীর্ঘদিন ধরে সচেতনতামূলক অবিরাম গতিতে নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকার লোকজন এলাকায় অনুপ্রবেশ করে আমাদের সকল অর্জন বিলিন করে দিয়েছে। আমি মনে করি এটির অন্যতম কারণ রাজনৈতিক বিভাজন। প্রত্যেক নেতা যদি তার গ্রুপের লোকজনকে কঠোর ভাষায় এ বিষয়ে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তাহলে সবকিছু সহজে নিয়ন্ত্রণ করা যেত। তাদের ওপর আশাহত হয়ে তিনি এ মুহূর্তে সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

কোন মন্তব্য নেই:

Post Top Ad

Responsive Ads Here